শুক্রবার, মার্চ ১, ২০২৪
spot_img

মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা ও বীর নিবাস দিয়েছে আওয়ামীলীগ সরকার: উশৈসিং

সংবাদ১৬.কমঃ পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যে সম্মানী ভাতা আর বীর নিবাস তৈরি করে দিচ্ছে তা অন্য কোনো দলের সরকার এর আগে করেনি।

২৬ মার্চ রবিবার বান্দরবান জেলা প্রশাসকের বাসভবন প্রাঙ্গনে বান্দরবান জেলা প্রশাসনের আয়োজনে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা প্রদান অন্ষ্ঠুানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর এমপি এসব কথা বলেন।

পার্বত্য মন্ত্রী বীর বাহাদুর বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নাই। তিনি আছেন বলেই আজ বাংলাদেশ এত সুন্দরভাবে পরিচালিত হচ্ছে। দেশের সার্বিক ব্যবস্থার উন্নয়ন হচ্ছে। মন্ত্রী বীর বাহাদুর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কথা ভাবেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে পাশাপাশি তাদের বসবাসের উপযোগী বীর নিবাস তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে রক্ষা করা কঠিন। তাই আমাদের সকলকে অর্জিত স্বাধীনতা রক্ষা করতে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। কেননা মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের শত্রুরা এখনো দেশে নানা ধরনের অরাজকতা করছে আর এতে দেশের মান ক্ষুণ্ন হচ্ছে এবং অনেক উন্নয়ন কাজ বাধাগ্রস্থ হয়ে দেশের সামগ্রিক অগ্রগতিতে বাধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

এসময় মন্ত্রী বীর বাহাদুর আরও বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহ্বানে সাড়া দিয়ে যে সকল শহিদ তাদের প্রাণ দিয়েছেন তাদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন এবং দেশের স্বাধীনতা অর্জনে যারা অবদান রেখেছেন সেসকল বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারের প্রতি গভীর ভালোবাসা ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। মন্ত্রী আগামির স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান। পরে বান্দরবান জেলার ৫৩ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ পরিবারের সদস্যদের সম্মানী ও পুরস্কার প্রদান করা হয়।

বান্দরবান জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি’র সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যের মধ্যে বান্দরবান পুলিশ সুপার মো. তারিকুল ইসলাম, পার্বত্য জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম কাউছার হোসেন, সিভিল সার্জন ডা. নীহার রঞ্জন নন্দী, বান্দরবান পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবীসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহিদ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়