রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
spot_img

সোনারগাঁয়ে শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত! দীর্ঘ ৭ বছরেও হয়নি মাঠ ভরাটের কাজ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ দীর্ঘ প্রায় ৭ বছরেও ভরাট হয়নি নারায়নগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার ২৫ নং বিষ্ণাদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ। মাঠটি ভরাট না হওয়ায় প্রতিবছরই ভারি বৃষ্টিপাতের ফলে মাটি ও বালু  সরে গিয়ে প্রায় ৪ ফুট গভীর হয়ে বিভিন্ন স্থানে নানা রকম খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে।

অসমতল মাঠ হওয়ায় একটু বৃষ্টি হলেই দ্রুত গতিতে মাটি সরে যাচ্ছে বিদ্যালয়ের পাশের গভীর পুকুরে। অনেক সময় স্কুল প্রাঙ্গণে খানা খন্দের ফলে সৃষ্টি হচ্ছে জলাবদ্ধতা। ধীরে ধীরে গর্তগুলো গভীর হওয়ায় ভবন ধসে পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। কোনভাবেই মাটি সরে যাওয়া বন্ধ করা যাচ্ছে না। দীর্ঘ সময় ধরে চরম দুর্ভোগ ও ঝুঁকির মধ্যদিয়ে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করলেও মাঠ ভরাটের উদ্যোগ নেয়নি কর্তৃপক্ষ। ফলে দিন দিন শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের দুর্ভোগ বেড়েই চলছে। এ অবস্থায় বিদ্যালয়টিতে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি দিন দিন অনেকাংশে কমে যাচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাঠের বিভিন্ন স্থান থেকে মাটি সরে গিয়ে মাঠ ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ফলে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের দৈনিক সমাবেশ ও খেলাধূলা করতে অনেকটা বেগ পেতে হচ্ছে। ছুটাছুটি করতে গিয়ে প্রায় প্রতিদিনই দুই একজন শিক্ষার্থী খানাখন্দে পড়ে জামা কাপড় বই খাতা নষ্ট হওয়াসহ আহত হওয়ার ঘটনা ঘটে বলে জানা গেছে। এতে শিশুদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

স্থানীয় অভিভাবকরা জানান, সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হওয়া সত্বেও এতটা  নাজুক পরিবেশ দেখার কি কেউ নেই? এভাবে চলতে থাকলে আমাদের ছেলেমেয়েরা কিভাবে পড়াশোনা করবে?

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে বিদ্যালয়ের মাঠ ভরাট না হওয়ায় শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে। এ পর্যন্ত অনেকবার বিদ্যালয়ের মাঠের ছবিসহ বিভিন্ন দপ্তরে আবেদন করেও কোনো লাভ হয়নি। এছাড়াও বিদ্যালয়ে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর থেকে একটি ওয়াশ ব্লক স্থাপনে বার বার পরিদর্শনে এলেও নতুন ভবনের পাশে ৭ ফুট গভীর হওয়ায় তা সম্ভব হচ্ছে না। এছাড়া বিদ্যালয়ের দৈনিক সমাবেশ ও কোমলমতি শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা সমস্যা প্রকট হয়ে দাড়িয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে সোনারগাঁ উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা দৌলতর রহমানকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়