সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০২৪
spot_img

দুই বছর গত হলেও হচ্ছেনা পৌর নির্বাচন, স্থবির উন্নয়ন কাজ, ভোগান্তিতে জনগণ

সংবাদ১৬.কমঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পৌরসভায় দীর্ঘ দুই বছর যাবত নির্বাচন না হওয়ায় সেবা বঞ্চিত নাগরিকরা ক্ষুব্ধ। চরম ভোগান্তিতে মানুষজন।

সর্বশেষ ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বর সোনারগাঁ পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে নৌকা প্রতিক নিয়ে নির্বাচন করেন নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনের আওয়ামীলীগের সংসদ সদস্য মোঃ নজরুল ইসলাম বাবুর ভগ্নিপতি ও জেলা যুব আইনজীবি পরিষদের সভাপতি এডভোকেট মোঃ ফজলে রাব্বি। তবে ভোট যুদ্ধে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী এডভোকেট মোঃ ফজলে রাব্বিকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে বিদ্রোহী প্রার্থী সাদেকুর রহমান। সাদেকুর রহমানের দায়িত্বকাল শেষ হয়ে পূনরায় দুই বছর অতিবাহিত হলেও নির্বাচন হয়নি সোনারগাঁ পৌরসভায়।

২০২১ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি বর্তমান মেয়র সাদেকুর রহমান এবং নয়টি সাধারণ ওয়ার্ড ও তিনটি সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ হয়েছিল। পাঁচ বছর মেয়াদ শেষ হবার ১৫ মাস পর নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পৌরসভায় প্রশাসক নিয়োগ দেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। একইসঙ্গে পৌরসভা পরিষদ বিলুপ্ত ঘোষনা করা হয়।

২০২২ সালের ১৬ মে প্রশাসক নিয়োগের প্রজ্ঞাপনের চিঠি পৌরসভা কর্তৃপক্ষের কাছে এসে পৌঁছায়। পরে সোনারগাঁ পৌরসভা প্রশাসকের দায়িত্ব পায় তৎকালিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তৌহিদ এলাহী। ইউএনও তৌহিদ এলাহী সোনারগাঁ থেকে বদলী হয়ে যাওয়ার পর বর্তমান ইউএনও রেজওয়ান-উল-ইসলাম পৌর প্রশাসকের দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

বর্তমানে সোনারগাঁ পৌরসভায় নির্বাচিত কোন জনপ্রতিনিধি না থাকায় সকল ধরনের উন্নয়ন কাজ স্থবির হয়ে পড়েছে। নানা ধরনের ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন পৌরবাসী। স্থানীয় বিচার-শালিস, প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের সত্যায়ন, ওয়ারিশ সার্টিফিকেটসহ বিভিন্ন ধরনের কাজে পৌরসভার বাসিন্দারা চরম ভোগান্তিতে পড়ে আছে। এছাড়া বিভিন্ন ওয়ার্ডের রাস্তাঘাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার নানা সমস্যা থাকলেও সেগুলো নিরসনে বর্তমানে কোন উদ্যোগ নেই। পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলররা কেউ দায়িত্বে না থাকায় এসব উন্নয়ন কাজ এখন বন্ধ হয়ে আছে।

জানা গেছে, সোনারগাঁ পৌরসভার ছোট শীলমান্দি ও মল্লিকপাড়া মৌজার কিছু জমি মেঘনা ইকোনমিক জোনের জন্য কর্তন করে পার্শ্ববর্তী মোগরাপাড়া ইউনিয়নে অন্তর্ভুক্ত করে ভূমি মন্ত্রণালয়। পরে তৎকালীন পৌর মেয়র সাদেকুর রহমান বাদী হয়ে এর বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে একটি রিট পিটিশন দায়ের করেন। এ রিট পিটিশন নিষ্পত্তি না হওয়ায় সোনারগাঁ পৌরসভার মেয়াদ শেষ হলেও নির্বাচন ঝুলে রয়েছে।

সোনারগাঁ পৌরসভার সচিব মাশরেকুল আলম এর সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, পৌরসভা নির্বাচনের ব্যাপারে সোনারগাঁ উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও সহকারি সীমানা নির্ধারণ কর্মকর্তা মো. ইব্রাহিম নির্বাচন কমিশনারের নির্দেশ মোতাবেক কাজ করছে। তবে এর বেশী কিছু আমাদেরকে জানানো হয়নি উপজেলা প্রশাসন থেকে।

এদিকে সোনারগাঁ উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও সহকারি সীমানা নির্ধারণ কর্মকর্তা মো. ইব্রাহিম গত ৪ এপ্রিল পৌরসভার ওয়ার্ড বিভক্তি ও সীমানা পুনর্বিন্যাস করার জন্য একটি গণ-বিজ্ঞপ্তি জারি করেন। এতে ১৫ দিনের মধ্যে কোন আপত্তি-অভিযোগ ও পরামর্শ থাকলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার বরাবরে দাখিলের জন্য অনুরোধ জানান। পরে পৌরসভার ওয়ার্ড বিভক্তি ও সীমানা পুনর্বিন্যাস এর কোন অভিযোগ না থাকায় একটি প্রতিবেদন লিখে জেলা প্রশাসকের বরাবরে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও সহকারি সীমানা নির্ধারণ কর্মকর্তা মো. ইব্রাহিম বলেন, বর্তমানে পৌরসভার সীমানা নির্ধারণের কোন জটিলতা নেই। এ ব্যাপারে তিনি একটি প্রতিবেদন লিখে জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠিয়েছেন, তবে কবে পৌরসভা নির্বাচন হবে সেটা নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত নিবেন বলেও জানান তিনি।

এবিষয়ে সোনারগাঁ উপজেলায় দায়িত্বরত নির্বাচন কমিশনার ইউসুফ-উর-রহমান বলেন, পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে আমাদের দিক থেকে কোন জটিলতা নেই। তবে এখন আর সীমানা জটিলতার সমস্যা না থাকার বিষয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত প্রতিবেদন পাঠানো হয়েছে।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়