সোমবার, জুলাই ১৫, ২০২৪
spot_img

শ্রেষ্ঠ সংগঠক মান্নানকে হুমকী, প্রতারক কামাল ও ভেজাইল্যা সুলতানকে গ্রেফতার দাবী

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মানবিক কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ সরকারের বিভিন্ন দপ্তর থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ সংগঠকের পুরস্কার প্রাপ্ত ও মানব কল্যাণ পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ মান্নান ভূঁইয়াকে জীবনণাশের হুমকী দিয়েছে চিহ্নিত প্রতারক কামাল প্রধান ও ভেজাইল্যা সুলতান মাহমুদ। অব্যাহত অপপ্রচার ও হুমকীর প্রতিবাদে তাদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বন্দর থানার বাগবাড়ী এলাকার আবুল প্রধানের ছেলে কামাল প্রধান ও সোনারগাঁ হাড়িয়া বৈদ্দপাড়া এলাকার চাঁন মিয়ার ছেলে সুলতান মাহমুদ দীর্ঘদিন যাবৎ অনৈতিক সুবিধা আদায়ের জন্য মানবিক সংগঠক ও গণমাধ্যম কর্মী এম এ মান্নান ভূঁইয়ার মান সম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য কুৎসা রটিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালাচ্ছে এবং বিভিন্ন দপ্তরে নামে বেনামে চিঠি দিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। এছাড়া কামাল প্রধান ও সুলতান মাহমুদ দ্বারা পরিচালিত কয়েকটি ফেসবুক আইডি দিয়ে মিথ্যা বানোয়াট তথ্য পরিবেশন করে সামাজিক ভাবে ক্ষয়ক্ষতি করার চেষ্টা চালাচ্ছে। বেশ কয়েকদিন আগে প্রতারক চক্রটি মান্নান ভূঁইয়াকে চাষাঢ়ায় মারধর করারও চেষ্টা করে।

উল্লেখ্য যে, মাদক বিরোধী সামাজিক আন্দোলন ও মানবিক কাজগুলো ত্বরান্বিত করায় একটি ষড়যন্ত্রকারী চক্র দীর্ঘদিন যাবৎ মান্নান ভূঁইয়াকে হত্যা করার জন্য ওঠেপড়ে লাগে। কুচক্রী মহল কয়েক দফা হামলা চালিয়ে তাকে গুলিবিদ্ধ করে রক্তাক্ত জখমও করেছিল। সেই ঘাঁ এখনও সুখায়নি। বর্তমানে মানবিক যোদ্ধা মান্নান ভূঁইয়ার সামজিক কর্মকান্ড ও সচেতনতামূলক কার্যক্রমে ঈর্শ্বান্বিত হয়ে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মানব কল্যাণ পরিষদকে ক্ষতিগ্রস্ত করার জন্য কুচক্রী মহল অবিরাম চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

বিভিন্ন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ন্যায় বিচারের প্রত্যাশায় জীবনের নিরাপত্তা ও ক্ষয়-ক্ষতির আশংকায় এবং অপপ্রচারের বিরুদ্ধে একাধিক মামলার আসামী কামাল প্রধান ও ভেজাইল্যা সুলতান মাহমুদকে আসামী করে নারায়ণগঞ্জ জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে ভুক্তভোগী মান্নান ভূঁইয়া লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। যার নং-৬৩৬৫। পরবর্তীতে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এনডিসিকে তদন্ত ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিলে এনডিসি গত ৩০ মে ৫৭৯(৬) স্মারকে অভিযোগের শুনানী গ্রহণের জন্য কামাল ও সুলতানকে ৫ জুন হাজির হওয়ার নির্দেশ দিলে প্রতারক কামাল উপস্থিত হয়নি। পরবর্তীতে আবারও ৭ জুন ৫৯৮(৬) স্মারকে প্রতারক চক্রদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ উপস্থিত থাকার নির্দেশ দিলে সুলতান মাহমুদ ও কামাল প্রধান অভিযোগ শুনানীর নোটিশকে অবজ্ঞা করে হাজির না হয়ে সমাজকর্মী মান্নান ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে ভুয়া তথ্য দিয়ে ফেসবুকে অপপ্রচার চালিয়েই যাচ্ছে অদ্যবধি। বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে মিথ্যা বানোয়াট চিঠি দিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করেই চলেছে। গত ১৬ জুন প্রতারক কামাল প্রধান সহ আরো কয়েকজন মান্নান ভূঁইয়াকে মিথ্যা মামলা মোকদ্দমা দিয়ে হয়রানী করার হুমকী সহ মেরে লাশ শীতলক্ষ্যা নদীতে ভাসিয়ে দেওয়ার হুংকার দেয়। বর্তমানে মান্নান ভূঁইয়া ও তার পরিবারের সদস্যরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে এবং ন্যায় বিচারের স্বার্থে জেলা প্রশাসনের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেন। এছাড়াও অপপ্রচারের দায়ে সাইবারক্রাইমে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি জিডি করে। জিডি নং-২৯০।

উল্লেখ্য যে, মানবিক যোদ্ধা মান্নান ভূঁইয়া সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমুখী কর্মসূচী বাস্তবায়নে সহযোগীতাসহ সামাজিক সচেতনতায় অগ্রণী ভূমিকা রাখায় স্বেচ্ছাসেবক মান্নান ভূঁইয়া সমাজ সেবা অধিদপ্তর, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, মহিলা বিষয়ক অধিপ্তর, জেলা তথ্য অফিস, জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ও নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তর থেকে মানবিক কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ পুরস্কার লাভ করেন। রাজনৈতিকমুক্ত মান্নান ভূঁইয়া বরাবরই মানুষের কল্যাণে নিবেদিত ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এছাড়া তিনি একজন গণমাধ্যমকর্মী হিসেবে নারায়ণগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবের আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছে। অথচ তার সামাজিক কাজে বাধাসৃষ্টি সহ মান্নান ভূঁইয়াকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী, ভূমিদস্যু ও প্রতারক চক্র ষড়যন্ত্র করে হয়রানী করে আসছে।

এই প্রসঙ্গে ভুক্তভোগী মান্নান ভূঁইয়া বলেন আমি আল্লাহ ছাড়া কাউকে ভয় করিনা। ভালো কাজ করতে গেলে বাধা আসবেই তাই বলে থেমে থাকবো না। অপরাধীদের ছাড়ও দিবো না। অপরাধীদের গ্রেফতার ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনে সামাজিক আন্দোলন চালিয়ে যাবো।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়