শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২৪
spot_img

সাংবাদিক নাদিম হত্যায় অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান বাবু আটক

সংবাদ ডেস্কঃ সাংবাদিক নাদিম হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত ইউপি (ইউনিয়ন পরিষদ) চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবু পঞ্চগড় থেকে আটক হয়েছেন। পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি চর তিস্তাপাড়া থেকে তাকে র‍্যাবের একটি দল আটক করে বলে জানা গেছে।

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ থানার ওসি জামাল হোসেন র‌্যাবের হাতে মাহমুদুল আলম বাবু আটক হয়েছেন বলে শুনলেও আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানেন না। জানা গেছে, সেখানে এক আত্মীয়ের বাড়িতে অবস্থান করছিলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার (১৪ জুন) রাত সাড়ে ১০টার দিকে জামালপুরের বকশীগঞ্জ পৌরসভার পাটহাটি এলাকায় হামলার শিকার হন বাংলানিউজের জেলা প্রতিনিধি গোলাম রব্বানী নাদিম। অভিযোগ উঠে সাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবুর নেতৃত্বে ১০-১২ জন এ হামলা করেন। পরে স্থানীয় এক সাংবাদিকসহ কয়েকজন তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠান। এদিন রাত দেড়টার দিকে জামালপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় তাকে। সকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয় । সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার দুপুরে তার মৃত্যু হয়।

শুক্রবার সকাল ১০টায় বকশীগঞ্জ নূর মোহাম্মদ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তাঁর প্রথম জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। পরে তার গ্রামের বাড়ি উপজেলার নীলক্ষিয়া ইউনিয়নের গোমেরপাড়ায় লাশ নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে জিগাতলা মাঠে অনুষ্ঠিত হয় তার জানাজার দ্বিতীয় নামাজ। সেখানেই পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

নাদিম ওই উপজেলার নীলক্ষিয়া ইউনিয়নের গোমের চর গ্রামের আবদুল করিমের ছেলে। তার স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

এদিকে শুক্রবার জানাজায় বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সোহেল রানা জানান, এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে এখন পর্যন্ত ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সিসিটিভির ফুটেজ দেখে শনাক্তের পর এদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি সিসিটিভির ফুটেজ দেখে ঘটনার সঙ্গে জড়িত বাকিদের গ্রেপ্তাতারের জন্য সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

এদিকে শুক্রবার রাতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহিনা বেগম ও সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন তালুকদার বাবুলের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়- চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবুকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে।

সাংবাদিক হত্যার ন্যক্কারজনক ঘটনায় প্রশাসন ও বিভিন্ন গণমাধ্যমে মাহমুদুল আলম বাবুর সংশ্লিষ্টতা জোরালোভাবে উল্লেখিত হওয়ায় দলীয় ভাবমূর্তি প্রচণ্ডভাবে ক্ষুন্ন হয়েছে। ইতোপূর্বেও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে অসাংগঠনিক কার্যক্রম ও অসদাচরণ প্রকাশ পাওয়ায় তাকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সাধুরপাড়া ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয় এবং সংগঠন থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হলো।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়