মঙ্গলবার, জুন ২৫, ২০২৪
spot_img

প্রতারক কামাল ও ভেজাইল্যা সুলতানকে গ্রেফতার দাবীতে মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন নারায়ণগঞ্জ শাখার বিশৃঙ্খল সভাপতি সুলতান মাহমুদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল প্রধানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। একাধিক মামলা, লিখিত অভিযোগ, থানায় জিডি ও আদালতের সাজাপ্রাপ্ত আসামী প্রতারক কামাল প্রধান প্রকাশ্যেই ঘুরছে এবং ভেজাইল্যা সুলতান মাহমুদ বিভিন্ন জায়গায় প্রশাসনের নাম ব্যবহার করে অবৈধভাবে ভেজাল বিরোধী মোবাইল কোর্টের ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদাবাজি করছে বলে অভিযোগে প্রকাশ।

বিভিন্ন অভিযোগ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ৩১ মে প্রতারক কামাল প্রধানের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ অর্থঋণ আদালতে এর যুগ্ম দায়রা জজ ৮ মাসের জেল ও ৫ লাখ টাকার সমপরিমাণ চেকের অর্থ জরিমানা করে একটি মামলার রায় প্রদান করে। সেশন মামলা নং-৮৮৬/১৯।

বিজ্ঞ আমলী ম্যাজিস্ট্রেট ‘ক’ অঞ্চল আদালতের একটি মানহানী মামলায় বিজ্ঞ আদালত ৫ জুন কামাল প্রধানের বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যু করেছে বলে ভুক্তভোগী বাদী সোহলে রানা প্রধান জানায়। সিআর মামলা নং-৫৯১/১৯।

মোঃ আবুল হাসেমের দায়েরকৃত সেশন মামলায় ৭৫০/১৯ ও ৭৪৮/১৯ বিজ্ঞ ৩নং যুগ্ম দায়রা জজ আদালত কামালের বিরুদ্ধে এক বছর বিনাশ্রম সাজা প্রদান করে। গত ৭ মে বিজ্ঞ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ১নং আমলী আদালতে সাংবাদিক খন্দকার মাসুদুর রহমান দিপু প্রতারক কামালের বিরুদ্ধে একটি মানহানী মামলা দায়ের করে। মামলা নং-৫৮৪/২০২৩।

আদালত আসামী কামাল প্রধানকে আগামী ১১ জুন আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেন। এছাড়াও তিনি ভেজাইল্যা সুলতান মাহমুদ ও প্রতারক কামাল প্রধানকে দ্রুত গ্রেফতার ও প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে লিখিত অভিযোগ প্রদান করে এবং অপপ্রচারের দায়ে সাইবার ক্রাইমে নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় গত ৩০ এপ্রিল একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। জিডি নং-১৪৩।

রফিকুল ইসলাম নান্নু নামে এক আওয়ামী লীগ নেতা ভেজাইল্যা সুলতান মাহমুদের বিরুদ্ধে বিগত ২০২১ সালের ৯ এপ্রিল সোনারগাঁ থানায় সন্ত্রাস বিরোধী আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১৩।

ব্ল্যাকমেইলিং করার প্ররোচনায় এক নারী হাফিজা আক্তার সাথি নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় সুলতানের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। ভুক্তভোগী রুবেল মিয়ার কাছ থেকে জমি ক্রয় বাবদ ১৯ লাখ টাকা নেয় কামাল প্রধান কিন্তু জায়গা বুঝিয়ে দিতে না পারায় চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৬নং আদালতে প্রতারকের বিরুদ্ধে গত ৬ এপ্রিল সি আর মামলা দায়ের হয়। যার নং-৯৯/২৩। মামলাটি তদন্তের জন্য বন্দর থানায় রয়েছে।

একই জায়গা দেখিয়ে রূপালী ব্যাংক থেকে প্রতারক কামাল ১০ লক্ষ টাকা ঋণ নেয়। ঋণের টাকা পরিশোধ না করলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সুদে আসলে প্রায় ১৫ লাখ টাকা পাওনা দেখিয়ে কামালের বসতভিটা গত ৩ এপ্রিল পত্রিকার মাধ্যমে নিলামের বিজ্ঞপ্তি প্রদান করেন। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ প্রতারণার জন্য কামাল প্রধানের বিরুদ্ধে আরো দুটি মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা যায়। শাহআলম তালুকদার নামে একজন পত্রিকার সম্পাদক সুলতান ও কামালের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের দায়ে নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় গত ১১ মে একটি জিডি করে। জিডি নং-৬১৮ এবং ন্যায় বিচারের আশায় গত ৩ মে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। যার নং-৬৩৬৭।

সুলতান ও কামালের দ্বারা হয়রানীর শিকার বন্দরের আব্দুস সালাম মিন্টু নামে এক সংবাদকর্মী গত ১০ মে ডিসি এসপি ও বন্দর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। যার নং-৬৬১৪।

সোনারগাঁয়ে মাসুম সিকদার নামে এক ভুক্তভোগী চাঁদাবাজ সুলতান মাহমুদ ও প্রতারক কামাল প্রধানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য একটি লিখিত আবেদন করলে গত ৪ এপ্রিল সিনিয়র সহকারী কমিশনার নুসরাত আরা খানম নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা দেন। যার স্মারক নং-৪০৮।

অবৈধ ভাবে মোবাইল কোর্ট ও থানা পুলিশের ভয়ভীতি দেখিয়ে জাতীয় ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশনের চাঁদাবাজদের দ্বারা হয়রানীর শিকার বন্ধে ভুকত্তভোগী আব্দুর রহমান জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে লিখিত অভিযোগ করলে জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ বিধি মোতাবেক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এসপিকে নির্দেশনা দেন গত ৮ মে। প্রতারক কামাল প্রধান বিভিন্ন লোকদের বোকা বানিয়ে ধোকা দিচ্ছে এবং একাধিক পত্রিকা একাধিক লোকের কাছে বিক্রয় করছে বলে বাটপার কামালকে দ্রুত গ্রেফতারের জন্য গত ১১ মে পুলিশ সুপারের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে ফরিদা ইয়াসমীন সুমনা। যার স্মারক নং-৪৫৭-ভি।

জাল দলিল সৃজন করায় ইতিমধ্যে বন্দর থানার ৪৫নং মামলাটি সিআইডি পুলিশ কামাল প্রধানের বিরুদ্ধে চার্জশীট প্রদান করেছে। চার্জশীট নং-৩৭৯। বিশ্বাস ভঙ্গ ও টাকা আত্মসাৎ করাসহ হুমকী প্রদানের অপরাধ এবং প্রতারণার দায়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় কামাল প্রধানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ইসদাইরের মোঃ সোহেল। মামলা নং-৩৬। মামলাটি চার্জশীট হয়ে বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে।

আল মামুন মির্জা নামে এক ভুক্তভোগী ২ লক্ষ ৩০ হাজার টাকার প্রতারণার দায়ে কামালের বিরুদ্ধে ‘ক’ অঞ্চল আদালতে একটি সি আর মামলা দায়ের করে। মামলা নং-৯২৬/২১।

বিদেশে নেওয়ার কথা বলে ১ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় কামাল। দেই দিচ্ছি বলে ঘুরাঘুরি করে উল্টো হুমকী ধামকী দেওয়ায় সিরাজুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় একটি জিডি করে। জিডি নং-৪৫৭ ও নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের বরাবর গত ৬ এপ্রিল আরেকটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে।

মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে সামাজিক ভাবে মানসম্মান ক্ষুন্ন ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করায় মোঃ আনোয়ারুল হক বন্দর থানায় একটি জিডি করে। জিডি নং-১২৩১ এবং গত ১৪ মে ডিসির বরাবর কামালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য লিখিত অভিযোগ প্রদান করে। যার নং-৬৭৭৪। অভিযোগটি এসপি ও বন্দর থানাকে অনুলিপি দেওয়া হয়। বন্দর মিনারবাড়ী এলাকার মনিরুজ্জামান জমি সংক্রান্ত বিরোধে কামালকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে। মামলা নং-১২০/১৯। মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে।

মোঃ আইয়ুব আলী ও গোলাম মোস্তফা ডিসির বরাবর আরো দুটি অভিযোগ দায়ের করে প্রতারকদের বিরুদ্ধে। এতো অভিযোগ ও মামলা থাকার পরও সুলতান মাহমুদ ও কামাল প্রধান বহাল তবিয়তে প্রকাশ্যেই বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে এবং সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষকে ব্ল্যাকমেইলিং করে হয়রানী করছে। তাদের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন থানায় একাধিক অভিযোগ থাকার পরও প্রশাসন কেন দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছেনা বিষয়টি সচেতন মহলকে ভাবিয়ে তুলেছে।

তাদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবীতে নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকায় ভুক্তভোগী ও সচেতন নাগরিক সমাজ এবং সাংবাদিকরা মানববন্ধন সহ বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছে। এই ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জের ডিসি এসপিসহ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করে নারায়ণগঞ্জবাসীকে স্বস্তি দিবে বলে ভুক্তভোগীরা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়