শনিবার, এপ্রিল ১৩, ২০২৪
spot_img

ভেজাইল্যা সুলতান ও প্রতারক কামালের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টারঃ নারায়ণগঞ্জের চিহ্নিত প্রতারক ও একাধিক মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী কামাল প্রধান ও ভেজাইল্যা সুলতান মাহমুদের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সময়ে ডিসি, এসপি ও বিভিন্ন থানায় একাধিক ভুক্তভোগীর অভিযোগ থাকায়। যে কোন সময় গ্রেফতার হতে পারে বলে পুলিশ সূত্র জানায়। ইতিমধ্যে পুলিশ তাদের অবস্থান নিশ্চিত করে নজরদারীতে রেখেছে বলেও জানা গেছে।

জানা যায়, সোনারগাঁ থানায় ২০০৯ সালের সন্ত্রাস বিরোধী সংশোধনী ২০১৩ আইনের মামলায় সুলতান মাহমুদ ২০২১ সালের ৯ এপ্রিল হেফাজত কান্ডের এজাহারভুক্ত আসামী, মামলা নং-১৩। নারী কেলেঙ্কারি সহ ব্ল্যাকমেইলিংয়ের হোতা সুলতানের বিরুদ্ধে ৫ জানুয়ারি ২০২১ সালে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় এক নারী লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন রেস্টুরেন্ট, ডায়গনোষ্টিক সেন্টার, ক্লিনিক, খাদ্য সামগ্রীর দোকানসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে জাতীয় ভেজাল বিরোধী প্রতিরোধ ফাউন্ডেশনের পরিচয় দিয়ে অবৈধভাবে মোবাইল কোর্টের পরিচয় দিয়ে মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদাবাজি করে আসছে। এছাড়া বিভিন্ন দপ্তরে নামে বেনামে তথ্য অধিকার আইনটিকে অপব্যবহার করে চিঠি দিয়ে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষকে বিব্রত সহ অপপ্রচার চালিয়ে চাঁদাবাজি করে চলছে।

সুলতান মাহমুদ নিজেকে সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী ও অনিবন্ধিত সময়ের চিন্তা অনলাইনের সম্পাদক ও প্রকাশক পরিচয় দিয়ে নানা অপরাধ করে যাচ্ছে। অন্যদিকে দ্বিগুবাবুর বাজারে দোকান দেওয়ার কথা বলে চিহ্নিত প্রতারক কামাল প্রধানের বিরুদ্ধে মোঃ আবুল হাসেম পাঁচ লক্ষ টাকার প্রতারনার দায়ে দুইটি মামলা করে নারায়ণগঞ্জ ৩নং যুগ্ম দায়রা জজ আদালতে। মামালা নং-৭৫০/১৯ ও ৭৪৮/১৯ সেশন। এক প্রবাসীর জায়গা জাল দলিল করে অন্যত্র বিক্রি করার দায়ে ২০১৯ সালের ৩১ অক্টোবর বন্দর থানায় কামালের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা দায়ের হয়। মামলা নং-৪৫। মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। জমি সংক্রান্ত আরেকটি বিষয়ে মনিরুজ্জামান ওরফে মনির হোসেন বাদী হয়ে বিজ্ঞ আমলী ম্যাজিস্ট্রেট ‘ঘ’ অঞ্চল নারায়ণগঞ্জ আদালতে একটি সিআর মামলা দায়ের করে। মামলা নং-১২০/১৯।

ভুয়া দলিলের আরেকটি প্রতারনামূলক মামলা দায়ের করেন আইয়ুব আলী নামের এক অটোচালক। মামলা নং-৯২/১৭ ও সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ‘ঘ’ অঞ্চল আদালতে সিআর ৪১/১৯ মামলা দায়ের করেন কামালের বিরুদ্ধে। চেক ডিজঅনারের আরেকটি মামলা বিজ্ঞ ৩নং যুগ্ম দায়রা জজ আদালতে মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে। যার সেশন নং-৮৮৬/১৯। এই মামলাটির শীঘ্রই রায় হবে এবং জেল জরিমানা হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে। মামলাটির বাদী সোহেল রানা প্রধান কামালের বিরুদ্ধে আরেকটি মানহানী সি,আর মামলা ৫৯১/১৯ ও পিটিশন মামলা নং-২৬৪/১৮ বিজ্ঞ আমলী ম্যাজিস্ট্রোট ‘ক’ অঞ্চলে দায়ের করেছেন। সাংবাদিক আরিফুল ইসলামের কাছে নিবন্ধনহীন সবুজ পৃথিবী ভুয়া পত্রিকা বিক্রি করে দেড় লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয় প্রতারক কামাল। এই বিষয়ে জেলা প্রশাসক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। বিদেশে নেওয়ার কথা বলে কামাল ১ লক্ষ ৩৫ হাজার টাকা সালাউদ্দিনের কাছ থেকে প্রতারনা করে হাতিয়ে নেয়। এই বিষয়ে সালাউদ্দিনের নিকট আত্মীয় সাংবাদিক সিরাজুল ইসলাম ডিসি ও নারায়ণগঞ্জ সদর থানায় কামালের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ নাম্বার-৫২২৪ ও সদর থানার জিডি নং-৪৭৫। হুমকী ধামকী ও অপপ্রচারের দায়ে কামালের বিরুদ্ধে বন্দর থানায় সাধারণ ডায়েরী করে মোঃ আনোয়ারুল হক। যার নং-১১৩১।

এছাড়াও নিবন্ধনহীন দৈনিক স্বাধীন বাংলাদেশ নিয়ে প্রতারনা করে ২ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয় মোঃ সোহেলের কাছ থেকে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ২০২১ সালের ১৬ই আগষ্ট সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি প্রতারনার মামলা দায়ের করে কামালের বিরুদ্ধে। মামালা নং-৩৬। মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। শুধু তাই নয় আল মামুন মির্জা চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ‘ক’ অঞ্চল আদালতে এনআইএ্যাক্ট এর ১৩৮ ধারায় সি,আর মামলা দায়ের করে। মামলা নং-৯২৬/২০২১। বন্দরের রুবেল মিয়ার কাছ থেকে জমি বিক্রয়ের নামে ১৯ লক্ষ টাকা মেরে দেয় কামাল। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিয়েছে রুবেল। কামাল প্রধান নিজেকে ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক, হিউম্যান রিসোর্স এন্ড হেলথ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর এলডিবির সভাপতিসহ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র প্রার্থীর পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন মানুষের কাছে প্রতারনা করে আসছে।

সাম্প্রতিক সময়ে ভেজাইল্যা সুলতান মাহমুদ ও প্রতারক কামাল প্রধান দুইজন একত্রিত হয়ে সাথে আরও কয়েকজন প্রতারকচক্র সংঘবদ্ধ ভাবে ব্ল্যাকমেইলিংসহ চাঁদাবাজি করে আসছে। সাংবাদিক মাকসুদুর রহমান দীপুর বিরুদ্ধে মানহানীকর অপপ্রচারের দায়ে ডিসি, এসপির কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে সুলতান ও কামালের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা দেয় প্রশাসন।

সুলতান মাহমুদ ও কামাল প্রধান নিজেদের ফেসবুক আইডিসহ কামাল প্রধান সমর্থক, আজকের নীলকণ্ঠসহ বেশ কয়েকটি ফেক আইডি দিয়ে বিভিন্ন মানুষের চরিত্র হনন করছে ভুয়া খবর প্রচার করে। বিভিন্ন ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও বিভিন্ন থানায় ভুক্তভোগীদের একাধিক অভিযোগ দায়ের হলে জেলা প্রশাসন সুলতান ও কামালের বিরুদ্ধে এ্যাকশনে যাচ্ছে এবং যে কোন সময় গ্রেফতার হতে পারে বলে পুলিশ সূত্রে জানা যায়।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়