মঙ্গলবার, জুন ২৫, ২০২৪
spot_img

সোনারগাঁয়ের ব্যবসায়ীকে তুলে নিয়ে অপ-প্রচার

সোনারগাঁ প্রতিনিধিঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে এক ব্যবসায়ীকে বন্দর উপজেলার কেওঢালা এলাকা থেকে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে ভিডিও ধারন করে মিথ্যা অপ-প্রচার চালিয়ে হয়রানী করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে কতিপয় দুস্কৃতিকারীদের বিরুদ্ধে।

এ বিষয়ে ব্যবসায়ী জাকির হোসেনের ভাই মোক্তার হোসেন বাদী হয়ে বন্দর থানায় একটি সাধারণ ডাইরি (জিডি) করেন। সাধারণ ডাইরিতে বাদী মোক্তার হোসেন উল্লেখ্য করেন ব্যবসায়ী জাকির হোসেন তার আপন সহোদর। সে সোনারগাঁ উপজেলার সাদিপুর ইউনিয়নের নানাখী এলাকায় ইট, বালু, রড এবং সিমেন্ট সরবরাহকারী ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।

গত ১৭ এপ্রিল সন্ধার পর তার নিজস্ব পরিবহন পিকআপ দিয়ে ডেমরা এলাকা থেকে বালু আনার জন্য নানাখী এলাকা থেকে রওনা দিয়ে বন্দর উপজেলার কেওঢালা এলাকায় পৌছালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মুখি একটি স্টার লাইন নামক যাত্রীবাহী বাস জোরে ধাক্কা মেরে পিকআপ গাড়ির লুকিং গ্লাস ভেঙ্গে ফেলে। ফলে এর প্রতিবাদ করায় ব্যবসায়ী জাকির হোসেন কে যাত্রীবাহী বাসে থাকা বাপ্পি ও মিনহাজ উদ্দিনসহ অজ্ঞাত ৫/৬ জন দুস্কৃতিকারী জোর পূর্বক গাড়ীতে তুলে ভিডিও ধারন করে কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় নিয়ে গেলে তাহার ডাক চিৎকারে দায়িত্বরত অবস্থায় থাকা ক্যান্টনমেন্ট পুলিশ ফাড়ির এস আই আমিরুল ইসলাম তাকে উদ্ধার করে নিজ হেফাজতে নেন। পরে এই বিষয়ে অবগত হয়ে উভয়পক্ষকে শাষিয়ে দিয়ে বিদায় করে দেন।

গত ১৯ এপ্রিল দেখা যায় উল্লেখিত মিনহাজ উদ্দিন ও বাপ্পি মিথ্যা তথ্য ও ভিডিও দিয়ে ফেনীর প্রত্যয় নামক এক অনলাইন পোর্টালসহ কয়েকটি ফেসবুকে ব্যবসায়ী জাকির হোসেনকে জড়িয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করেন। এ বিষয়ে ভবিষ্যতের জন্য বন্দর থানায় একটি সাধারন ডাইরি (জিডি) করা হয়েছে। যাহা বন্দর থানার জিডি নং- ৮৮৮, তাং- ২০/০৪/২০২৩।

ব্যবসায়ী জাকির হোসেন জানান, আমার গাড়ীর গ্লাস ভেঙ্গে ফেলায় আমি প্রতিবাদ করি, এর কারনে দুস্কৃতিকারী ও সন্ত্রাসীরা আমাকে জোর পূর্বক তুলিয়া নিয়া মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল। পুলিশের হস্তক্ষেপে এতে ব্যার্থ হলে তারা আমাকে নিয়ে মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি এর ন্যায় বিচার চাই।

নানাখী এলাকার নির্বাচিত ইউপি সদস্য  মাসুদ মোল্লা জানান, জাকির হোসেন একজন ভালো মানুষ সে এ এলাকায় ব্যবসায় পরিচালনা করে আসছে, শুধু তাই নয় জাকির হোসেন এলাকার সামাজিক ও ধর্মীয় সকল কাজে সহায়তা করে আসছে। এ ধরনের উদ্দেশ্য ও নেক্কার জনক কাজের জন্য আমরা ধিক্কারসহ তীব্র প্রতিবাদ ও দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানাই।

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান, ব্যবসায়ীকে হয়রানী করে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে একটি আবেদন নেওয়া হয়েছে, তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়