সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০২৪
spot_img

মানুষ না বাঁচলে দেশের উন্নয়ন করে কি হবে? জিএম কাদের

সংবাদ ডেস্কঃ সরকার যা করছে তাতে আমরা সন্তুষ্ট নই। আমরা দেখছি কম মূল্যের পণ্য কিনতে হাজার হাজার মানুষ টিসিবির ট্রাকের পেছনে ছুটছে। মধ্যবিত্ত ঘরের অনেক ভদ্র মানুষ সেখানে যেতে পারছেন না। দেশের মানুষ কষ্টে আছে, সেই কষ্ট লাঘবে রেশনিং কার্ডের মাধ্যমে পণ্য দেওয়া দরকার।

বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশের মানুষ ভালো নেই, সরকারের কাছেও পর্যাপ্ত অর্থ নেই দাবি করে বিরোধী দলীয় উপনেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেছেন মেগা প্রকল্প বাদ দিয়ে মানুষ বাঁচানোর প্রকল্প নিতে হবে। কিন্তু সরকার তা করছে না।

বুধবার (১ মার্চ) সন্ধ্যায় রংপুর মহানগরীর সেনপাড়ায় প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের স্কাই ভিউ বাসভবনে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন জিএম কাদের।

তিনি বলেন, সরকার স্বীকার করুক আর না করুক, আমরা মনে করি সরকারের হাতে টাকাও নেই বিদেশি ডলারও নেই। অর্থাৎ সরকার এখন অর্থকষ্টে ভুগছে। এ কারণে দিনে দিনে সবকিছুর দাম বাড়িয়ে ঘাটতি পূরণের চেষ্টা চলছে। এতে সাধারণ মানুষের ওপর চাপ বাড়ছে।

মানুষকে বাঁচাতে সরকারকে মেগা প্রকল্প বন্ধের আহ্বান জানিয়ে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, আমরা হাজার হাজার কোটি টাকার মেগা প্রকল্প করতে পারি আর দেশের মানুষকে বাঁচাতে কোনো উদ্যোগ নিতে পারব না, এটা হতে পারে না। মানুষ না বাঁচলে দেশের উন্নয়ন করে কী হবে। মেগা প্রকল্প বন্ধ করে মানুষকে বাঁচানোর চেষ্টা করতে হবে। সরকার যদি এখনই ব্যবস্থা না নেয় সামনের দিকে আরও খারাপ দিন আসতে পারে বলে আমরা আশঙ্কা করছি।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে প্রস্তুতির কথা জানিয়ে জিএম কাদের বলেন, আমরা ৩০০ আসনে নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। ইভিএমে ভোট জনগণ ভালোভাবে নেয়নি। আমরা সেটা সবসময় বলে আসছি। ইভিএমে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। যদিও রংপুর সিটির নির্বাচনে আমাদের প্রার্থী জিতেছে। অনেক স্থানে আমরা জয়ী হয়েছি, কিন্তু সেটি বিষয় নয়। আমরা চাই একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হোক। ব্যালটের মাধ্যমে হলে নির্বাচন স্বচ্ছ হবে।

জাপা চেয়ারম্যান আরও বলেন, দেশের ৮০ শতাংশ ভোটার নিশ্চিত করতে পারছে না, তারা কোথায় ভোট দেবেন। আমরা সেই ভোটারদের লক্ষ্য করেই কাজ করছি, তাদের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করছি। আমরা মানুষের রাজনীতি বোঝার চেষ্টা করছি। অতীতেও আমরা মানুষের জন্য রাজনীতি করেছি, বর্তমানেও করছি।

এ সময় রংপুর জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি রসিক মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, মহানগরের সাধারণ সম্পাদক এস এম ইয়াসীর, জেলার সদস্য সচিব হাজী আব্দুর রাজ্জাক, মহানগরের সহসভাপতি লোকমান হোসেনসহ জাতীয় পার্টির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়