সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৪
spot_img

সরকারি গাছগুলো কর্তনের অভিযোগ সত্য

পূর্বধলা সংবাদদাতাঃ নেত্রকোনার পূর্বধলায় ক্ষমতার দাপটে নিলামের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ গাছ কাটার অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে নিলামকারী মো: কামরুল ইসলাম খানের বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে খুব শীঘ্রই মামলা রুজু করা হবে বলে জানিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

গেলো বছর ১১ অক্টোবর উপজেলায় কলেজ রোড ও কাপাশিয়া রোডে ৯টি গাছ নিলামে বিক্রি করে প্রকৌশল বিভাগ। ৯৬ হাজার ৫ শত টাকায় গাছগুলো ক্রয় করেন উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ’র যুগ্ম সম্পাদক মো: কামরুল ইসলাম খান। ২৪ নভেম্বর ৯টি গাছ কর্তনের স্থলে ১৬টি গাছ কর্তনের লিখিত অভিযোগ উঠে নিলামকারীর বিরুদ্ধে।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা প্রকৌশলীকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। পরে তদন্ত কমিটি অতিরিক্ত ৯টি গাছ কর্তনের স্থলে ১৫ টি গাছ কাটার প্রমান সহ ২১ নভেম্বর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর প্রতিবেদন দাখিল করেন।

প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় থেকে ৩ জানুয়ারি নিলামে ডাক বহির্ভূত ৬টি মেহগনি গাছ অবৈধভাবে কর্তনের দায়ে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় নিয়মিত মামলা দায়েরের জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে অবহিত করা হয়। এক মাসেও মামলা না হলে পুনরায় ২৯ জানুয়ারি আবারও একটি তাগিদ পত্র দেওয়া হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ জাহিদ হাসান প্রিন্স বলেন, অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়েরের জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে একাধিক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। উপজেলা প্রকৌশলী ও তদন্ত কমিটির প্রধান মো. সাদিকুল জাহান রিদান বলেন, অতিরিক্ত কাটা ৬টি গাছের কিছু অংশ জব্দ করা হয়েছে। অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে খুব শীঘ্রই পূর্বধলা থানায় মামলা রুজু করা হবে।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়