সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২৪
spot_img

শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতনের টাকা দিয়ে মাদরাসায় উপবৃত্তি চালু

নিখিল বর্মন, সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁর সাপাহারে একটি মাদরাসায় শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন থেকে টাকা দিয়ে উপবৃত্তি চালু করা হয়েছে। উপজেলার খঞ্জনপুর তালকুড়া লতিফিয়া আলিম মাদরাসায় এবতেদায়ি শাখার ২৫ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে উপবৃত্তি প্রদানের মাধ্যমে ইতোমধ্যে এ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।

সরেজমিনে রোববার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার খঞ্জনপুর তালকুড়া লতিফিয়া আলিম মাদরাসায় গিয়ে শিক্ষক-কর্মচারী ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রাথমিক পর্যায়ে সরকারি বিদ্যালয়গুলোতে উপ বৃত্তি চালু থাকলেও মাদরাসার শিক্ষার্থীদের জন্য এখনো চালু হয়নি উপবৃত্তি। যার ফলে বিশেষ করে মাদরাসার এবতেদায়ি শাখায় ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি কম হয়ে থাকে। আবার দেখা যায়, কিছু শিক্ষার্থী ভর্তি হলেও উপস্থিতির হার সন্তোষজনক হয় না। এছাড়া আরও কিছু কারণ সমূহ চিহ্নিত করে মাদরাসায় শিক্ষার্থী ভর্তি এবং ক্লাসে উপস্থিতি বাড়াতে বেতন স্কেল অনুযায়ী প্রতি মাসে নির্দিষ্ট অংকের চাঁদা তুলে একটি তহবিল গঠনের উদ্যোগ গ্রহণ করেন খঞ্জনপুর তালকুড়া লতিফিয়া আলিম মাদরাসার ২০ জন শিক্ষক এবং ৬ জন কর্মচারী। সেই তহবিলের অর্থ থেকে অন্যান্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিয়মেই এবতেদায়ি শাখায় উপবৃত্তি প্রদান, মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তি প্রদান এবং গরীব অসহায় শিক্ষার্থীদের রেজিষ্ট্রেশন ফি সহ বিভিন্ন শিক্ষা উপকরণ সহায়তা দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে। যাতে করে অন্যান্য বছরের তুলনায় উক্ত মাদরাসায় শিক্ষার্থী ভর্তি এবং ক্লাসে উপস্থিতি হার বেড়েছে। এছাড়াও অভিভাবকদের মধ্যে সচেতনা বৃদ্ধি এবং ক্লাসে উপস্থিতি বাড়াতে নিয়মিত হোম ভিজিট, মা ও অভিভাবক সমাবেশ এবং ইন-হাউজ মিটিং করা হচ্ছে বলে জানান শিক্ষকরা।এই প্রতিষ্ঠানের সহকারী অধ্যক্ষ (বাংলা) আব্দুল হালিম ২০২০ সালে দেশ সেরা কনটেন্ট নির্মাতা হিসেবে গৌরব অর্জন করেন বলে জানা যায়।

গত শিক্ষা বর্ষে মাদরাসায় ৩০০ জন শিক্ষার্থী থাকলেও চলতি শিক্ষা বর্ষে শিক্ষার্থী বেড়ে ৪৫০ জন হয়েছে জানিয়ে খঞ্জনপুর তালকুড়া লতিফিয়া আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষ মুহাম্মদ আব্দুল মাতিন বলেন, মাদরাসায় ভর্তি বৃদ্ধি সহ ক্লাসে উপস্থিতি বৃদ্ধির জন্য কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। সেই উদ্যোগ সমূহ বাস্তবায়ন করতে আমরা শিক্ষক-কর্মচারী মিলে নিজেদের বেতন থেকে কিছু টাকা দিয়ে একটি তহবিল গঠন করেছি। প্রতিষ্ঠান প্রধানকে প্রধান করে তিন সদস্যের পরিচানলা কমিটি সেই তহবিলের অর্থ ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে পরিচানলা করা হচ্ছে।

মাদরাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দীন বলেন, প্রতিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরকারি ভাবে শতভাগ উপ বৃত্তি চালু থাকলেও মাদরাসাগুলোতে এখনো উপ বৃত্তি চালু করা যায়নি। আমি ছয় মাস হ’লো মাদরাসাটির সভাপতির দায়িত্ব নিয়েছি। আমি দায়িত্ব নেওয়ার পর এই মাদরাসায় এবতেদায়ি শাখায় উপ বৃত্তি চালু করতে পেরেছি।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শামসুল কবীর বলেন, মাদরাসাগুলো এমনিতেই শিক্ষার্থী তেমন পায় না। যদি শিক্ষার্থী বাড়াতে উদ্যোগ নিয়ে থাকে সেটা করতে পারে। কিন্তু খঞ্জনপুর তালকুড়া লতিফিয়া আলিম মাদরাসা এমন উদ্যোগ নিয়েছে কিনা আমার জানা নাই। তবে, কোন প্রতিষ্ঠান যদি প্রতিষ্ঠানের মঙ্গলের জন্য উদ্যোগ নিয়ে থাকে, তাহলে অবশ্যই সেটা পজেটিভ হিসেবে ধরে নিবো।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়