শনিবার, মার্চ ২, ২০২৪
spot_img

সোনারগাঁয়ে ভূমিদস্যু খ্যাত শিক্ষক সফিক এখন রাজনীতিতে সক্রিয়

সংবাদ১৬.কমঃ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেও রাজনীতিতে যুক্ত থাকার প্রমান পাওয়া গেলো নোয়াগাঁও ইউনিয়নের লাধুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ওই এলাকায় ভূমিদস্যু খ্যাত শফিকুল ইসলাম সফিকের বিরুদ্ধে।

সরকারি কর্মচারী বিধিমালা লঙ্ঘন করে নারায়নগঞ্জের সোনারগাঁয়ে আওয়ামীলীগের কর্মী সন্মেলনকে কেন্দ্র করে গাড়ি বহর নিয়ে শোডাউন করেছেন ভূমিদস্যু খ্যাত শিক্ষক শফিকুল ইসলাম সফিক। এর আগে তার বিরুদ্ধে একাধিকবার কৃষি জমির মাটি কেটে অন্যত্র বিক্রি করারও অভিযোগ রয়েছে। যা বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। তিনি উপজেলার নোয়াগাঁও ইউনিয়নের লাধুরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক।

জানা যায়, শফিকুল ইসলাম সফিক নামের এই শিক্ষক বৃহস্পতিবার তাঁর নিজ এলাকা নোয়াগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কর্মী সন্মেলনকে ঘিরে বিপুল সংখ্যক লোকজন ও মোটরবাইক শোডাউন করেন। বিশ্বস্ত সূত্র জানায়, তিনি নোয়াগাঁও ইউনিয়ন যুবলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক পদেও বহাল রয়েছেন।

এখানেই শেষ নয়, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শিক্ষিকারা জানান, এই শিক্ষক সোনারগাঁ উপজেলা শিক্ষক সমতির নাম করে একাধিক শিক্ষিকাকে সময়ে অসময়ে মোবাইল ফোনে ও সরাসরি কু-প্রস্তাব দিয়ে থাকে। তার ব্যবহৃত গাড়িতে নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার প্রস্তাবে রাজি না হলে শিক্ষক সমিতি ও উপজেলা প্রশাসন থেকে কোন রকম সুযোগ সুবিধা দেয়া হবেনা বলেও হুশিয়ারি দেন তিনি। তার প্রতি অতিষ্ঠ সোনারগাঁও শিক্ষক সমিতির সদস্যবৃন্দ।

এলাকাবাসী ও কয়েকজন শিক্ষক জানান, রাজনৈতিক সন্মেলনকে ঘিরে শোডাউন করা শিক্ষক মোঃ শফিকুল ইসলাম সফিককে এর আগেও বিভিন্ন সভা, সমাবেশ ও মিছিলে অংশগ্রহণ করতে দেখা গেছে যা সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা লঙ্ঘন ১৯৭৯-এর ২৩ ধারা এবং ২৫ (১)-এর সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

উল্লেখ্য, সরকারি কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা লঙ্ঘন ১৯৭৯-এর ২৩ ধারায় বলা আছে, সরকারি কর্মচারী নিজ নামে প্রকাশিত কোনো লেখায় বা তার কর্তৃক জনসম্মুখে প্রদত্ত বক্তব্যের অথবা বেতার-টেলিভিশনে সম্প্রচারে কোনো বক্তব্য এমন কোনো বিবৃতি বা মতামত প্রকাশ করতে পারবেন না, যা সরকারকে অস্বস্তিকর অবস্থায় ফেলতে পারে। এছাড়া ২৫ ধারায় বলা আছে, কোনো সরকারি কর্মচারী রাজনৈতিক দলের বা রাজনৈতিক দলের কোনো অঙ্গসংগঠনের সদস্য হতে বা কোনোভাবে যুক্ত হতে পারবেন না অথবা দেশের কোনো রাজনৈতিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ বা কোনো প্রকারেই সহযোগিতা করতে পারবেন না।

এই বিষয়ে সোনারগাঁ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার দৌলতর রহমান বলেন, বিষয়টি আমি অবগত নই। তবে কোন শিক্ষক যদি রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ বা শোডাউন করে সরকারি বিধিমালা অনুযায়ী ব্যবস্হা নেওয়া হবে।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়