শনিবার, মার্চ ২, ২০২৪
spot_img

ছাত্রলীগ আমার দূর্বলতার জায়গা কিন্তু অন্যায় করলে ছাড় দিবনা

জবি প্রতিনিধিঃ রাজনীতি থাকবে তবে সেখানে হিংসা, বিদ্বেষ থাকা যাবে না। ছাত্রলীগ আমার দূর্বলতার জায়গা, কিন্তু যদি কেউ অন্যায় করে তাকে কিন্তু আমি ছাড়বো না। সাধারণ শিক্ষার্থীর সাথে অন্যায় আমি মেনে নিবোনা। সোজা ডিসিপ্লিনারি বোর্ডে নাম চলে যাবে। জবি শাখা ছাত্রলীগ কতৃক আয়োজিত বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠানে এমন কথা বলেন জবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম।

রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) বেলা দেড়টায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) কেন্দ্রীয় অডিটোরিয়ামে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ ইব্রাহিম ফরাজির সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণ কর্মশালার অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠান পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন জবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস.এম আকতার হোসেন।

জবি উপাচার্য সাদেকা হালিম বলেন, আমি ছাত্রদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাফেরিয়ার খাবারও টেস্ট করে দেখছি, কিভাবে খাবারের মান ভালো করা যায় সেইদিক নিয়েও আলোচনা করেছি। আমি আজ পর্যন্ত সরকারের কোনো টাকা নিয়ে প্লেনে উঠিনি। আমরা কোয়ান্টিটি যেই দিকে থাকে সেইদিক ছুটে চলি, কোয়ালিটি বিবেচনা করিনা। আরেকটা দিক আমাদের মনে রাখতে হবে, সেটি হলো মেয়েদের সম্মান করা, কারন বঙ্গবন্ধু ৭১’এর মুক্তিযুদ্ধে যাদের সম্মানহানি হয়েছে তাদের বীরঙ্গনা উপাধি দিয়েছেন। যদিও বাংলাদেশ দরিদ্র দেশ কিন্তু রাজনৈতিকভাবে বাংলাদেশ আমেরিকা, চীন, ভারতের কাছে গুরুত্বপূর্ণ দেশ। আর সেটি হলো দেশনেত্রী শেখ হাসিনার কল্যাণে, কারন দেশনেত্রী কারো কাছে মাথা নত করেন না।

জবি কোষাধ্যক্ষ হুমায়ুন কবির চৌধুরী বলেন, ছাত্রলীগের ছাত্রদের দেখে যেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা বুঝতে পারে বঙ্গবন্ধুর আর্দশ কেমন ছিল। আমরা নিজেদের সর্বোচ্চ শক্তি প্রয়োগ না করে বিবেক দ্বারা ভালো কাজ করার জন্য চেষ্টা করতে হবে। কয়েকটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া বাংলাদেশ ছাত্রলীগ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। কিভাবে একজন আরেকজনের প্রতি সহানুভূতি হতে হয় তা এই প্রশিক্ষণ কর্মশালার মাধ্যমেই শিখতে হবে।

এসময় কর্মশালা অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোস্তফা কামাল, জবি শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়