রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
spot_img

কারখানা বন্ধ, বেতন না দিলে আমাদের পথে বসতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নারায়াণগঞ্জের ফতুল্লায় ক্রোনী গ্রুপের অবন্তী কালার টেক্স লিমিটেড বকেয়া বেতন পরিশোধ না করে বন্ধ ঘোষণা করার প্রতিবাদে উক্ত কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছে।

শনিবার(১০ ফেব্রুয়ারী)ফতুল্লার বিসিক শিল্পাঞ্চলে কারখানার সামনে অবস্থান নেয় কারখানাটির শতাধিক শ্রমিক। সকাল ৮ ঘটিকা থেকে দুই ঘন্টা তাদের বিক্ষোভ কর্মসূচির ফলে ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়।

ঘটনাস্থলে শিল্প পুলিশ সদস্যরা কারখানার মালিকদের সাথে যোগাযোগ করেন। অতঃপর আগামী সোমবার বকেয়া বেতন পরিশোধ করার আশ্বাস দেয়া হলে সকাল ১০ টার দিকে আন্দোলনরত শতাধিক শ্রমিক সরে আসেন।

কারখানা সূত্রে জানা যায়, এ এইচ আসলাম সানির মালিকানাধীন কারখানাটিতে ডাইং ও নিটিংসহ অন্তত ৭ হাজার শ্রমিক কর্মরত রয়েছেন। কারখানার শ্রমিকরা এর আগে ডিসেম্বর মাসের আংশিক ও জানুয়ারী মাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার কর্মবিরতি দিয়ে বিক্ষোভ করেছেন। কারখানার মালিকপক্ষ গত বৃহস্পতিবার বিকেলে বেআইনিভাবে শ্রমিক ধর্মঘট বিশৃঙ্খলার’ কারণ দেখিয়ে কারখানা বন্ধের বিষয়টি ঘোষণা করেন।

বিক্ষোভে অংশ নেয়া কারখানার শ্রমিক তাসলিমা খাতুন বলেন, কারখানায় চাকরি করে সংসারের খরচ চালাই। আমার স্বামী গত বছর মারা গেছেন। আমার দুই ছেলের পড়াশোনার খরচ, বাড়ি ভাড়া, দোকান বাকিসহ অনেক খরচ জমে গেছে। বাড়িওয়ালা বাড়ি ভাড়ার জন্য চাপ দিচ্ছে। আজ সকালে কাজে এসে দেখি কারখানা বন্ধ, আমি হতবাক হয়ে গেছি। বেতন না দিলে আমরা কোথায় যাব?

অবন্তী কালার টেক্স লিমিটেডের সুইং অপারেটর আয়েসা সুলতানা বলেন, বাজার করতে পারছি না, বাড়ি ভাড়া জমে আছে, দোকান বাকির জন্যে দোকানদার প্রতিদিন বাড়িতে এসে তাগাদা দিচ্ছে। আমাদের বেতন না দিলে আমরা কোথায় যাব? মাত্র ৫ হাজার টাকা বেতনে আমাদের ৬ সদস্যের পরিবারে কিছুই হয়না। উল্টো দেনায় পরে থাকতে হয়। গত কয়মাস ধরে মালিক আমাদের বেতন নিয়ে খেলতেছে। আমাদের বেতন না দিলে পথে বসে থাকা ছাড়া আর কোন উপায় নেই। আমরা কারো দয়ায় টাকা চাই না, আমাদের পাওনা টাকার দাবি নিয়ে আন্দোলনে নেমেছি।

শিল্প পুলিশ-৪ এর নারায়ণগঞ্জ জেলার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার গণেশ গোপাল বিশ্বাস বলেন, বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবিতে শ্রমিকরা সকাল থেকে শান্তিপূর্ণভাবে কারখানার সামনে অবস্থান করে ও বিক্ষোভ কর্মসূচি করে। বকেয়া বেতন পরিশোধ করার এবং কারখানা খুলে দেয়ার দাবি জানায় শ্রমিকরা। কারখানার মালিকের সাথে আমরা যোগাযোগ করেছি, আগামী সোমবার বেতন দিবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। তিনি বলেন, শ্রমিকদের এ কথা জানালে তারা আশ্বস্ত হয় এবং তাদের বিক্ষোভ শেষ করে। একই দিন সকাল ১০ টায় উক্ত কারখানার শ্রমিকরা মিছিল করতে করতে সরে গেলেও শিল্প পুলিশ সদস্যদের ঘটনাস্থলে অবস্থান করতে দেখা যায়।

ক্রোনী গ্রুপের আরেকটি প্রতিষ্ঠান ক্রোনী টেক্স সোয়েটার লিমিটেড’ কারখানার ‘অর্ডার কমে যাওয়ার’ কথা বলে গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর লে-অফ ঘোষনা করে। পরদিন অপ্রত্যাশিত ঘটনার প্রতিবাদে কারখানাটির শতাধিক শ্রমিক ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ সড়কে বিক্ষোভ করেন।

এদিকে শনিবার সকাল ১১টায় চাষাঢ়া নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে ‘রূপসী গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ’ এর পোশাক কারখানার শতাধিক শ্রমিক ৩ মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। এসময় তারা বলেন, গত নভেম্বর থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত ৩ মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধ করছে না কর্তৃপক্ষ। আমাদের বেতন না দিয়ে কারখানাটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়