রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
spot_img

যুগান্তর-সহ বেশ ক’টি অনলাইন পোর্টালকে আইনি নোটিশ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আইন ও মানবাধিকার সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের সিনিয়র সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকসহ মানবাধিকার সংগঠনের নামে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করায় দৈনিক যুগান্তর, দৈনিক সকালের সময় ও দৈনিক আমাদের সময় সহ অন্যান্য নিউজ পোর্টালকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

শনিবার (১১ নভেম্বর) মিসেস শাহিনুর আহমেদ, এস এম জীবন, মো. প্রান্ত পারভেজ এর পক্ষে সংস্থার ঢাকা বিভাগীয় কমিটির সভাপতি মইনুর রশিদ চৌধুরী বাদী হয়ে জর্জ কোর্টের আইনজীবী মো: নেছার উদ্দিন এর মাধ্যমে লিগ্যাল নোটিশটি পাঠানো হয়।

নোটিশে যুগান্তরের সম্পাদক, আমাদের সময় এর সম্পাদক, সকালের সময় সম্পাদক সহ বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করায় এদেরকে মানহানি করা হয়েছে মর্মে পত্রিকাগুলোর বিরুদ্ধে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়।

নোটিশে উল্লেখ্য করা হয়: “আপনি নোটিশ গ্রহীতা যুগান্তর এর একজন সম্পাদক বটে। আপনি যুগান্তর পত্রিকায় ৪ নভেম্বর ২০২৩ তারিখে “পল্লবীতে মানবাধিকার সংগঠনের নাম ভাঙিয়ে চাঁদাবাজি” শিরোনামে যে তথ্য প্রকাশ করিয়াছেন তাহা আদৌ সত্য নয়।

নোটিশে আরও বলা হয়েছে: গ্রহীতা উত্তরূপ মিথ্যা তথ্য প্রকাশ করায় আমার মোয়াক্কেলগণ উহাতে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হইয়াছে, তাহাদের মান সম্মান হানী হইয়াছে। আপনি হীন উদ্দেশ্যে একতরফাভাবে কোন তথ্য যাচাই বাছাই না করিয়া এমনকি অভিযুক্ত ব্যক্তিদ্বয়ের কোন বক্তব্য গ্রহণ না করিয়া আপনার পত্রিকায় বানোয়াট, মিথ্যা, ভিত্তিহীন সংবাদ প্রচার করিয়া মানহানী করেছেন। আগামী সপ্তাহের মধ্যে যে সংবাদ প্রকাশ করিয়াছেন তাহার প্রমানাদী সহ জবাব দাখিলের জন্য জানানো হইল।

এমতাবস্থায় আমার মোয়াকেল কর্তৃক আপনার বরাবরে অনুরোধ করা যাইতেছে যে, গত ৪ নভেম্বর ২০২৩ তারিখে “পল্লবীতে মানবাধিকার সংগঠনের নাম ভাঙিয়ে চাঁদাবাজি” শিরোনামে যে তথ্য প্রকাশ করিয়া তাহার সত্যতা নিরূপনের জন্য নির্ভরযোগ্য সঠিক প্রমানাদি সহ জবাব দাখিল করিবেন। অন্যথায় আপনাদের বিরুদ্ধে দেশের প্রচলিত আইনে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করিতে আমার মোয়াক্কেল বাধ্য হইবেন।

অত্র লিগ্যাল নোটিশের জবাবের একটি অনুলিপি ভবিষ্যৎ কার্যক্রমের জন্য আমার সেরেস্তায় সংরক্ষিত রহিল। এই প্রকাশিত সংবাদটিতে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ, অশ্লীল, মিথ্যা এবং মানহানিকর মন্তব্য করা হয়েছে।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়