সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০২৪
spot_img

বিএনপি নেতার বাড়িতে হামলা, ভাংচুর, লুটপাট, প্রায় ২০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

সংবাদ সিক্সটিনঃ নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার পাঁচরুখী এলাকায় কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদের বাসভবণ-সহ তার ভাই, চাচা ও চাচাতো ভাইদের পাঁচটি বাসভবনে হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় হামলাকারীরা প্রতিটি বাড়িতে ঢুকে আসবাবপত্র ভেঙে তছনছ করে ঘরে থাকা নগদ টাকা ও স্বর্নালংকার লুট করে নিয়ে যায়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, একাধিক তলা বিশিষ্ট ভবনের প্রতিটি বাড়ির আসবাবপত্র ভাঙা অবস্থায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে ফ্লোরে পড়ে আছে, এ যেন এক অমানবিক নৈরাজ্য। রাজনীতির নামে প্রতি হিংসা চরমে এসে দাড়িয়েছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ১ নভেম্বর বুধবার সকাল আনুমানিক ১০ ঘটিকার সময় স্থানীয় ওয়াদুদ চেয়ারম্যানের গুন্ডাবাহিনী, আড়াইহাজার আওয়ামীলীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়ে নজরুল ইসলাম আজাদ ও তার ভাই, চাচাদের বাড়িঘরে ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। তাদের সাথে কয়েকজন হামলাকারীর গায়ে ডিবি-পুলিশ লিখা পরিহিত পোশাক/জ্যাকেট লক্ষ্য করা গেছে বলেও জানান এলাকাবাসী। হামলাকালে পুরো এলাকা জুড়ে এক ভয়ংকর পরিবেশ তৈরি হয়। এসময় গুলিসহ চারদিকে শুধু ইটপাটকেল ছোড়াছুড়ির শব্দ বেড়িয়ে আসছিলো বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে নজরুল ইসলাম আজাদের এক ঘনিষ্ঠ আত্নীয় বলেন, প্রতিটি বাড়িতে হামলা চালিয়ে ঘরের এসি, ফ্রিজ, টিভি ও মূল্যবান সকল আসবাবপত্র ভাংচুর করে নগদ টাকা ও স্বর্নালংকার লুট-সহ প্রায় ২০ কোটি টাকার ক্ষতি-সাধন করেছে হামলাকারীরা। তিনি বলেন, ঘরে থাকা আসবাবপত্রগুলো এমন ভাবে চুর্ণবিচুর্ণ করা হয়েছে একটা খাবার প্লেটও অবশিষ্ট নেই। প্রতিটি টয়লেট পর্যন্ত ভেঙে ফেলেছে সন্ত্রাসী বাহিনী।

উল্লেখ্য, গত ৩১ অক্টোবর মঙ্গলবার সকালে আড়াইহাজার পাঁচরুখী ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদের নেতৃত্বে আগুন জ্বালিয়ে মহাসড়কে অবরোধ সমর্থনে হাজার হাজার নেতাকর্মী আওয়ামীলীগ ও পুলিশের সাথে ত্রিমুখী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এসময় তিন পুলিশ সদস্যসহ বিএনপি ও আওয়ামীলীগের প্রায় ৫০ জন নেতাকর্মী আহত হয়।

এলাকাবাসীর দাবী বিএনপির ডাকা তিন দিনের অবরোধের ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা এ হামলা চালিয়েছে। এলাকাবাসী আরো জানান, আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে খুব আতংকে আছি। এ ঘটনার পর ওই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

আড়াইহাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আহসান উল্লাহ বলেন, বিএনপি নেতার বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি, এমন অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে। হামলার ঘটনায় পুলিশ/ডিবি পুলিশ জড়িত কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, পুলিশ প্রশাসন হলো মানুষের জানমাল রক্ষাকারী। এ ঘটনার সাথে পুলিশ সদস্যরা জড়িত থাকার প্রশ্নই আসেনা।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী ও বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার মোবাইলটি বন্ধ পাওয়া যায়।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়