রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
spot_img

ট্রেজারার হোক জবি থেকেই

জবি প্রতিনিধি, ঢাকাঃ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত অধ্যাপকগণের মধ্য থেকে ট্রেজারার নিয়োগ প্রসঙ্গে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এম.পি’র কাছে লিখিত চিঠি পাঠান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

জবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আইনুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. এ কে এম লুৎফর রহমান সাক্ষরিত চিঠিতে তারা উল্লেখ করেন, “শিক্ষা নিয়ে গড়ব দেশ-শেখ হাসিনার বাংলাদেশ’ এই প্রত্যয়কে ধারণ করে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণের লক্ষে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ। যার সামনে থেকে অক্লান্ত পরিশ্রম করে নেতৃত্ব দিয়ে চলেছেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা, আমাদের প্রাণপ্রিয়  প্রধানমন্ত্রী। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা ও ভিশন-২০৪১ বাস্তবায়ন করে তিনি বাংলাদেশকে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে বদ্ধপরিকর যা বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজন প্রশিক্ষিত জনগোষ্ঠী।

এক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের অবদান অনস্বীকার্য । বঙ্গবন্ধু, বাঙালি জাতীয়তাবাদ এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সজাগ।  জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রগতিশীল অধ্যাপকবৃন্দ প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত জ্ঞানভিত্তিক সমাজ বিনির্মাণের সারথি হয়ে এ লক্ষা পূরণে সহযোগিতা করতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

আরো উল্লেখ করেন যে, শতবর্ষী এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিকে ২০০৫ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত করা হয়। শত প্রতিকূলতাকে অতিক্রম করে ছাত্র-শিক্ষক ও প্রশাসনের অক্লান্ত পরিশ্রমে এটি বাংলাদেশের অন্যতম একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয়েছে। ইতোমধ্যে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন অধ্যাপককে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য হিসেবে এবং দুইজন অধ্যাপককে উপ-উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ প্রদান করেছেন এবং তাঁরা সুনামের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। এছাড়াও প্রাইভেট বিশ্বদ্যালয়ের উপাচার্য ও উপ-উপাচার্য পদে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন অধ্যাপক বর্তমানে দায়িত্ব পালন করছেন। এজন্য আপনার প্রতি আন্তরিক ধনাবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

উল্লেখ্য, অতীতেও বিভিন্ন পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য, উপ-উপাচার্য ও ট্রেজারার পদে দায়িত্ব পালন করেছেন এমন অধ্যাপকবৃন্দও এখানে কর্মরত আছেন। মন্ত্রী বরাবর জবি শিক্ষক সমিতির আবেদনে আরো বলা আছে যে  আগামী ২৬ নভেম্বর ২০২৩ তারিখে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান কোষাধাক্ষ্যের (যিনি প্রায় ০৫ বছর পূর্বেই চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অবসর গ্রহণ করেছেন) মেয়াদ শেষ হতে চলেছে।

গত ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে অনুষ্ঠিত জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সভায় সমিতির সদস্যবৃন্দ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান, কর্মরত অধ্যাপকগণের দক্ষতা ও যোগ্যতা বিবেচনায় নিয়ে এবং উন্নয়নের গতি ত্বরাণ্বিত করার স্বার্থে অনতিবিলম্বে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকগণের মধ্য হতে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত সৎ এবং প্রশাসনিক ও গবেষণায় অভিজ্ঞ শিক্ষকবৃন্দের হতে গ্রহণযোগ্যতা বিবেচনা সাপেক্ষে কোন একজনকে কোষাধাক্ষ পদে নিয়োগ দানের জনা সরকারের আশু দৃষ্টি আকর্ষণ করার ব্যাপারে সর্বসম্মতভাবে মত প্রকাশ করেন।

এমতাবস্থায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক উন্নয়ন ও স্থিতিশীলতার স্থার্থে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত জগন্নাথ  বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত অধ্যাপকগণের মধ্য থেকে যেকোন একজনকে কোবাধ্যক্ষ পদে নিয়োগ প্রদান করে শিক্ষকবৃন্দের মতামতের প্রতিফলন ঘটাবেন বলে প্রত্যাশী করছি।

উল্লেখ্য , জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বর্তমানে গ্রেড-১ পদে ৩৬ জন, গ্রেড-২ পদে ৪৬ জন এবং গ্রেড-৩ পদে ৭৪ জন মিলে সর্বমোট ১৫৬ জন অধ্যাপক কর্মরত আছেন। অবশেষে মাননীয় ডা. দীপু মনি এমপি এর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন জবি শিক্ষক সমিতির নেতৃবৃন্দ।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়