বুধবার, জুন ১৯, ২০২৪
spot_img

মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে যাবতজীবন কারাদন্ড

নিখিল বর্মন, পোরশা (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁ জেলার পোরশার ইলাম গ্রামের মাদ্রাসার ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে আসামির যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড  ও এক লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায় ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত করেছেন জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল এর বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মোঃ মেহেদী হাসান তালুকদার।

তিনি আজ সকালে আসামির অনুপস্থিতিতে এই রায়  ঘোষণা করেন। রাষ্ট্রপক্ষের বিশেষ কৌশলী মোহাম্মদ মকবুল হোসেন জানান ২০১৪ সালের ১০ই জানুয়ারি উক্ত এলাকার মাদ্রাসা ছাত্রী আসমা খাতুন (ছদ্মনাম) নানির বাড়ির উদ্দেশ্যে যাত্রাকালে কাশিতারা এলাকার জৈনক  হারুন শাহের আম বাগানে নিয়ে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি জোরপূর্বক  ধর্ষণ করে। রক্তাক্ত ও মুমূর্ষ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন উক্ত ছাত্রীর নানাকে খবর দিলে তিনি এসে উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা করান।

পোরশা থানায় ছাত্রীর নানা অভিযোগ দায়ের করলে তদন্তকারী কর্মকর্তা তদন্ত শেষে পোরশাা থানার উনার গোবরা কুড়ি এলাকার মোহাম্মদ ওসমানের পুত্র হ্যাপির বিরুদ্ধে অভিযোগ পত্র দাখিল করেন। আদালতে চলতি মাসের ২৩ তারিখে ১১ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আজ যুক্তিতর্ক শ্রবণের জন্য ধার্য থাকলে আসামি পলাতক থাকায় নিয়ম অনুযায়ী তার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করেন আইনজীবী এস এম সারওয়ার হোসেন। উভয় পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে জনাকীর্ণ আদালতে আজ সকালে পলাতক আসামির যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও এক লক্ষ টাকা অর্থদন্ড সহ অনাদায় ছয় মাস বিনাশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত করার রায় ঘোষণা করেন নারীও শিশু নির্যাতন বিশেষ ট্রাইবুনাল ২ এর  জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ মেহেদী হাসান তালুকদার।

রায় ঘোষণার সময়  আসামি না থাকায় সাজা পরোয়ানাসহ তার  বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারী করেন আদালতের বিচারক। জরিমানা টাকা ধর্ষণের শিকার নারীকে দেওয়ার নির্দেশ দেন আদালত।

আরো দেখুন
Advertisment
বিজ্ঞাপন

সবচেয়ে জনপ্রিয়