শুক্রবার, জানুয়ারি ২৭, ২০২৩
spot_img

মাসব্যাপী লোকজ উৎসব উপলক্ষে সোনারগাঁয়ে সমন্বয় সভা

spot_img
spot_img

সংবাদ১৬.কমঃ আবহমান গ্রাম-বাংলার হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যকে পুনরুজ্জীবিত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন প্রতিবছরই মাসব্যাপী লোক কারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসবের আয়োজন করে। তারই ধারাবাহিকতায়-

আসছে ১৮ জানুয়ারী নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে শুরু হচ্ছে মাসব্যাপী লোক কারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসব ২০২৩। বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন চত্বরে এ মেলা অনুষ্ঠিত হবে। মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সভাপতিত্ব করবেন সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ ও বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী, লোক ও কারুশিল্প অনুরাগী মোহাম্মদ আবুল হাশেম খান।

১৫ জানুয়ারি রোববার বিকেলে মাসব্যাপী লোক কারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসব উপলক্ষে মতবিনিময় সভায় ফাউন্ডেশনের পরিচালক এস এম রেজাউল ইসলাম এ তথ্য জানান।

ফাউন্ডেশনের লাইব্রেরি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় ফাউন্ডেশনের পরিচালক এস এম রেজাউল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ-৩ সোনারগাঁ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন, সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাড সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া, সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজওয়ান উল ইসলাম, নারায়ণগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) তরিকুল ইসলাম, সোনারগাঁ থানার ওসি মাহবুব আলম, নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের সদস্য আবু নাঈম ইকবাল, সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আক্তার ফেন্সি, ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক রবিউল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা ওসমান গনি, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সোনারগাঁ উপজেলার ডিজিএম গোলাম আহাম্মদ, জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাবেদ রায়হান জয়, আনিসুর রহমান বাবু প্রমূখ।

এ সময় সাংবাদিক আল আমিন তুষার, আবু বক্কর সিদ্দিক, রবিউল হোসাইন, মাহবুব ইসলাম সুমন, আরিফুল ইসলাম, মাজহারুল ইসলাম, ইমরান হোসেন, গাজী মোবারক, মুক্তার হোসেন মোল্লা, দ্বীন ইসলাম অনিক, শেখ ফরিদ শ্রাবণ, রুবেল খান, নূর নবী জনি, আনিসুর রহমান সজিব ও জুমন সিরাজী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় জানানো হয়, এবারের মেলায় কারুশিল্পী প্রদর্শনীসহ ১০০ টি স্টল বরাদ্দ দেয়া হবে।

মাসব্যাপী লোক ও কারুশিল্প মেলা, লোকজ উৎসবে বাউলগান, পালাগান, কবিগান, যাত্রাপালা, ভাওয়াইয়া-ভাটিয়ালীগান, জারি-সারিগান, হাছন রাজারগান, লালন সঙ্গীত, মাইজভান্ডারী, মুর্শিদীগান, গায়ে হলুদের গান, ক্ষুদ্র-নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, শরিয়তী-মারফতী গান, লোক কবিতা পাঠের আসর, পুঁথিপাঠ, গ্রামীণ খেলা, লাঠিখেলা, কাঠের কারুশিল্পের প্রদর্শনী, লোকজজীবন প্রদর্শনী, পুতুল নাচ, বায়স্কোপ, নগরদোলা, লোকগল্প বলা, পিঠা প্রদর্শনী থাকছে।

মেলায় প্রতিদিন লোকজ মঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, স্কুলের শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় বিলুপ্ত প্রায় গ্রামীণ খেলা, কর্মরত কারুশিল্পী প্রদর্শনী, মৃৎ-শিল্পের উপর বিশেষ প্রদর্শনী ছাড়াও নানা অনুষ্ঠান দেশীয় সংস্কৃতির পুনরুজ্জীবনে মাসব্যাপী লোক কারুশিল্পমেলা ও লোকজ উৎসব চলাকালীন সময়ে আইন-শৃংঙ্খলা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।

spot_img

জনপ্রিয় সংবাদ