শুক্রবার, জানুয়ারি ২৭, ২০২৩
spot_img

ব্রহ্মপুত্র নদের পানি ও পরিবেশ দূষণ রোধে মানববন্ধন

spot_img
spot_img

আড়াইহাজার প্রতিনিধিঃ পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের পানি ও পরিবেশ দূষণ বন্ধের দাবিতে আড়াইহাজারে মানববন্ধন হয়েছে। শনিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার উৎরাপুর এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদ রক্ষা আন্দোলনসহ আরো চারটি সংগঠন যৌথভাবে মানববন্ধনের আয়োজন করে।

পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদ রক্ষা আন্দোলনের আহ্বায়ক নাদিম ভূঁইয়া মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন। এসময় পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও সুবর্ণগ্রাম ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা শাহেদ কায়েস, রিভারাইন পিপল-এর সংগঠক শঙ্কর প্রকাশ, উৎরাপুর আদর্শ সমাজকল্যাণ সংঘের সহসভাপতি আলী আশরাফ, পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদ রক্ষা আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহবুবুর রহমান, মমতাজ উদ্দিন, ওমর ফারুকসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের স্থানীয় প্রতিনিধিরা মানববন্ধনে অংশ নেন। এছাড়াও পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন।

মানববন্ধনে অংশ নেয়া বক্তারা জানান, প্রায় ১৫ বছর ধরে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার,সোনারগাঁ ও বন্দর উপজেলার এক হাজারেরও বেশি প্রতিষ্ঠান সরাসরি ব্রহ্মপুত্র নদের পানি দূষণ করছে। এতে ব্রহ্মপুত্র নদ মাছসহ জলজপ্রাণীশূন্য হয়ে পড়েছে। স্থানীয় কৃষকরা কৃষিসেচেও নদের পানি ব্যবহার করতে পারছেন না। প্রয়োজনে কেউ নদীতে নামলে বিভিন্ন প্রকার চর্মরোগ দেখা দিচ্ছে। নদীতে মাছ না থাকায় স্থানীয় জেলেরাও তাদের কাজ হারিয়েছেন। বছরের পর বছর ধরে এমন দূষণ চললেও নদী রক্ষা কমিশন ও স্থানীয় প্রশাসন সবকিছু জেনে শুনে নির্বিকার থাকছে।

সভাপতির বক্তব্যে নাদিম ভূঁইয়া বলেন, আড়াইহাজার ও সোনারগাঁ অঞ্চলটি দেশের অন্যতম আর্সেনিক প্রবণ এলাকা। শত বছর ধরে এই এলাকার মানুষ মেঘনা ও পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদের পানির উপর নির্ভরশীল ছিল। পুরাতন ব্রহ্মপুত্রের ক্রমাগত দূষণের ফলে এই এলাকার কৃষিকাজ থেকে শুরু করে সব কাজেই ভূগর্ভস্থ পানির ব্যবহার বেড়েছে। এতে স্থানীয় মানুষের উপর আর্সেনিকের প্রভাবও বাড়ছে।

নদের মাছ হারিয়ে যাওয়ায় স্থানীয় জেলে ও দরিদ্র মানুষ বড় ধরনের সঙ্কটে পড়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, শতাধিক জেলে পরিবার কেবল পুরোনো ব্রহ্মপুত্রে মাছ শিকার করে তাদের সংসার চালাতো। ব্রহ্মপুত্রে মাছ শিকার করে স্থানীয় দরিদ্র মানুষ পুষ্টি চাহিদা পূরণ করতো। তাছাড়া, এলাকায় হাঁস পালনে নদের ঝিনুক ও শামুকই ছিল একমাত্র ভরসা। পানি দূষণের কারনে মাছের সঙ্গে নদী থেকে শামুক ঝিনুকও হারিয়ে গেছে। ব্যঙ, সাপসহ বিভিন্ন প্রাণী হারিয়ে যাওয়ায় পরিবেশে এর বিরুপ প্রভাব পড়েছে।

শাহেদ কায়েস তার বক্তব্যে বলেন, সারাদেশেই নদীগুলোকে হত্যা করা হচ্ছে। পুরাতন ব্রহ্মপুত্রও এর বাইরে নয়। সমাজের প্রতিটি মানুষকেই এসব নদী রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

spot_img

জনপ্রিয় সংবাদ