ঢাকাবুধবার , ১৬ নভেম্বর ২০২২
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. খেলা-ধুলা
  6. গল্প কবিতা
  7. জাতীয়
  8. তথ্য প্রযুক্তি
  9. দুর্ঘটনা
  10. ধর্ম
  11. পরিবেশ
  12. ফিচার
  13. বিনোদন
  14. বিশেষ সংবাদ
  15. মতামত

সোনারগাঁয়ে আওয়ামীলীগ বিএনপির সংঘর্ষ, বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাঙচুর

সংবাদ১৬.কম
নভেম্বর ১৬, ২০২২ ১০:৪৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

সংবাদ১৬.কমঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে আষারিয়ারচর এলাকায় আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের কার্যালয়ের সামনে বিএনপির সাথে সংঘর্ষ’র ঘটনা ঘটেছে। একই ওয়ার্ডের বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

১৬ নভেম্বর বুধবার সন্ধ্যা পৌনে ৭ টার দিকে হামলা পালটা হামলা ও ভাংচুর করেছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শী এলাকাবাসী। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, হামলায় পিরোজপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের কার্যালয়ে থাকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করে মাটিতে ফেলে রাখা হয়েছে। এ সময় অফিসের চেয়ার, টেবিল, ফ্যান ও লাইটসহ অন্যান্য আসবাবপত্র ব্যাপক ভাবে ভাঙচুর করা হয়।

অভিযোগ উঠেছে গত ১১ ই নভেম্বর পিরোজপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড থেকে সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নুর নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী ঢাকায় যুবলীগের মহাসমাবেশে অংশ নেয়। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে সোনারগাঁ উপজেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রউফ এর হুকুমে পিরোজপুর ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ন-আহ্বায়ক আব্দুল জলিল, পিরোজপুর ইউনিয়ন ৬ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি বাবুল বেপারি ও পিরোজপুর ইউনিয়ন যুবদলের সদস্য সবুর খান এর নেতৃত্বে অতর্কিতভাবে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে।
ঘটনাকালে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে আগামী ১০ ডিসেম্বরের পরে ৬ নং ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের কাউকে তারা এলাকায় থাকতে দিবে না বলে হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এ বিষয়ে জাতীয় শ্রমিকলীগের মেঘনা শিল্পাঞ্চল শাখার যুগ্ম-আহবায়ক ও একই ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য এম এ হালিম জানান, গত ১১ নভেম্বর ঢাকায় যুবলীগের মহাসমাবেশে আমাদের এলাকা থেকে বিপুল সংখ্যক আওয়ামীলীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা অংশগ্রহণ করেন। তারপর থেকেই সাধারণ সমর্থকদের সাথে দেখা হলে বিএনপি নেতারা হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে। আগামী ১০ ডিসেম্বরের পর আমরা কিভাবে এলাকায় থাকবো তারা দেখে নেবে বলে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে। এরই জের ধরে আজ আমাদের কার্যালয় ভাংচুর করেছে।

সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম সুমন জানান, আমি নিজে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।